• রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের বিদায়ী সংবর্ধনা অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে পল্লী বিদ্যুৎ এর ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মামলা নকলার চাঞ্চল্যকর শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন  সাজাপ্রাপ্ত আসামি ১৩ বছর পর গ্রেপ্তার ছাগলের পেট থেকে জন্ম নিলো গরুর বাছুর! শেরপুরে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত শেরপুরের ভারতীয় অবৈধ মদসহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার শ্রীবরদীতে ছেলের হাতুড়ির আঘাতে পিতা খুন এক দুপুরে ‘চিনামাটি পাহাড়ে’ শেরপুরে পৌর কাউন্সিলর বিএনপি নেতা খোকন  গ্রেপ্তার সরিষাবাড়ীতে রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন
বিজ্ঞপ্তিঃ
🌏 শেরপুর জেলার প্রতিমুহূর্তের খবর পেতে ভিজিট করুন www.sherpurtoday.com ও www.facebook.com/sherpurtoday শেরপুর টুডে ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন www.youtube.com/sherpurtoday 🌏 আপনার কোম্পানি/পণ্যের বিজ্ঞাপন দিতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন : ০১৯১৪-৮৫৪৪৩৯ 🌏

শেরপুর জেলা বিএনপির সম্পাদক হযরত সহ আটক ৮

শেরপুর টুডে ডেস্ক | শেরপুরটুডে.কম
আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ২ জানুয়ারী, ২০২৪

নির্বাচন বিরোধী লিফলেট ও নির্বাচন ঠেকানোর জন্য নাশকতার অভিযোগে শেরপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব হযরত আলী সহ ৮ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আজ ২ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলার চরপক্ষিমারী ইউনিয়ন থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় পুলিশকে লক্ষ্য করে বিএনপি নেতৃবৃন্দ ককটেল বিস্ফোরণ করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার চরপক্ষিমারী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে চলমান নির্বাচনকে প্রতিহত করার জন্য লিফলেট বিতরণ করছিল বিএনপি নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও গ্রামের নেতৃবৃন্দদের একত্রিত করে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। এমন খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালায়। পরে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পুলিশের উপর ককটেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ আত্মরক্ষায় ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পরবর্তীতে অনেকে পালিয়ে গেলেও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব হযরত আলী সহ আট (৮) জনকে আটক করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে শেরপুর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার- প্রশাসন ও অর্থ, (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) মো. খোরশেদ আলম পিপিএম বলেন, তারা নির্বাচন বিরোধী লিফলেট বিতরণ করছিল ও নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। এমন খবর পাওয়ার সাথেই পুলিশ অভিযান চালায়। তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশের উপর ককটেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়ে। এসময় আট (৮) জনকে আটক করা হয়।

শেরপুর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও শহর বিএনপির সভাপতি প্রভাষক মামুনুর রশিদ পলাশ বলেন, আমরা আগামী নির্বাচনে জনগণ যেন ভোট না দেয় সেই প্রচারণার জন্য লিফলেট বিতরণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। তার আগেই রাস্তায় আমাদের নেতা সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী সহ আট জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ককটেল বিস্ফোরণ তো দূরের কথা আমাদের হাতে লিফলেট ছাড়া কোন কিছুই ছিলো না। আর এই দুর্দনে আমরা ককটেল কোথায় পাবো? আমাদের মূল কাজ হচ্ছে সাধারন মানুষকে বুঝিয়ে নির্বাচন বিমুখ করা। কোন সহিংসতা করা আমাদের কাজ নয়। পুলিশ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে মামলা করছে।

এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে পুলিশ। বাকিদের নাম-ঠিকানা এখনো জানা যায়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ