ধানের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে কর্মসূচী ঘোষণা করেছে বিএনপি

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ধানের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে কৃষক তার ক্ষেতে আগুন দিলেও সরকার নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে। তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখন ভয়ঙ্কর একটি শাসন চলছে। যে শাসনে এদেশের কৃষক-শ্রমিক-মেহনতী মানুষ, ছাত্র, যুব, নারী কেউ নিরাপদ নয়, কারোর পক্ষেই স্বাভাবিক জীবন যাপন করা সম্ভব হচ্ছে না। গত এক শতাব্দীতে লক্ষ্য করবেন কৃষক তার উৎপাদিত ধানে আগুন দিয়েছে এরকম ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু এই সরকারের আমলে ঘটেছে। কি ভয়ঙ্কর কৃষক তার ধানের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে আর সরকার নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের উদ্যোগে কৃষকের ধান সহ-সকল প্রকার ফসলের ন্যায্যমূল্য দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি’র এই শীর্ষনেতা বলেন, ‘বর্তমান কৃষি মন্ত্রীর বাড়ি টাঙ্গাইল সেই টাঙ্গাইলের কৃষকরা নিজের ধান ক্ষেতে আগুন দিয়েছে। কৃষিমন্ত্রী কিছু করেন নাই, প্রধানমন্ত্রী কিছুই করেন নাই। কারণ হলো এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার না। এই সরকার অবৈধ সরকার বলেই জনগণের কাছে কৃষকদের কাছে কোন কৈফত তারা দিতে চায় না।’

নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘আমাদেরকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। এই স্বৈরতান্ত্রিক একনায়কতন্ত্রের সরকারকে বুঝিয়ে দিতে হবে বাংলাদেশের জন্ম মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান। লক্ষ লক্ষ শহীদ হয়েছে, মা বোন ইজ্জত দিয়েছে স্বাধীনতার জন্য। গণতন্ত্রের প্রশ্নে এই দেশে লুটপাট দুর্নীতি একনায়কতন্ত্র স্বৈরতন্ত্র টিকবে না এটাই বুঝিয়ে দিতে হবে। আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে কৃষক-শ্রমিক-মেহনতী মানুষ সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে বেগম জিয়ার মুক্তির আন্দোলন করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে দুদু আরও বলেন,‘বর্তমান সরকার দেশে লুটপাট করবে শেয়ার বাজার ব্যাংক লুটপাট করবে কৃষকরা তার ধানের ন্যায্যমূল্য পাবে না। উপকরণ কিনতে গেলে তিনগুণ দাম দিয়ে কিনতে হবে এভাবে তো চলতে পারে না। এই অবৈধ সরকার ক্ষমতায় আসার আগে বলেছিল ঘরে ঘরে চাকরি দেবে কৃষকের ফসলের ন্যায্য মূল্য দিবে দশ টাকা সের চাল খাওয়াবে এখন বাস্তবে আমরা কি দেখছি? শিক্ষিত যুবকরা বেকার হয়ে আছে, কৃষকের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না, দশ টাকা সের চাল ৬০ থেকে ৭০ টাকা কিনে খেতে হচ্ছে।

এই কৃষক নেতা বলেন, কৃষকের জন্য সবচাইতে বেশি কাজ করেছেন শহীদ জিয়া,বেগম জিয়া ও বিএনপি। এই জন্য বেগম জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখেছে যাতে তিনি কৃষকদের পক্ষে কথা না বলতে পারে এবং আন্দোলন করতে না পারে। এসময় শামসুজ্জামান দুদু মানবন্ধনে কৃষকের ধানের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে কর্মসূচী ঘোষণা করেন। সারাদেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে হাট, উপজেলা পর্যায়ে সপ্তাহব্যাপী এ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামী ২১,২২,২৩,২৪,মে সারাদেশের সকল ইউনিয়ন হাটে ঘাটে মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশ ২৫ মে শনিবার সকল উপজেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং ২৬ মে রোববার সারা দেশের প্রত্যেকটি জেলায় জেলা প্রশাসক বরাবর কৃষকদের ধানের ন্যায্যমূল্য দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে।

আয়োজক সংগঠনের যুগ্ম-আহ্বায়ক তকদির হোসেন মোহাম্মদ জসিমের সভাপতিত্বে এবং সদস্য এসকে সাদীর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব,কৃষক দলের সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, যুগ্ম-আহ্বায়ক সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী,জামাল উদ্দিন খান মিলন,সদস্য আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, মাইনুল ইসলাম, মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার খলিলুর রহমান ইব্রাহিম, কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, এম জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *