ধান নিয়ে হতাশাগ্রস্ত কৃষকের মাঝে হঠাৎ একদল যুবকের আগমন

সৈকত আহাম্মেদ শেরপুর সংবাদদাতা: চলছে বুরো মৌসুম। বাংলাদেশে বুরো ধানের বাম্পার ফলন। বাম্পার ফলন হওয়া সত্তেও কৃষকের মাঝে হতাশা ছড়িয়ে পড়েছে ধান কাটা নিয়ে। বর্তমানে আমাদের দেশে এক মণ ধানের যে মূল্য তা দিয়ে একজন শ্রমিকের মজুরি পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই আজ ধানের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে বাংলার কৃষক হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

এরি মাঝে হতাশাগ্রস্ত কৃষকের মাঝে আশার আলো নিয়ে একদল যুবকের আগমন। শেরপুর জেলা সদর ৯ নং চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মুন্সীর চর গ্রামে ধান কাটা নিয়ে হতাশাগ্রস্ত কৃষকের ধান কেটে দিতে ১৭/০৬/১৯ ইং সকাল সাত ঘটিকায় উপস্তিত হয় একদল তরুন যুবক। তারা আজ সারা দিন মুন্সীর চর গ্রামে অসহায় কৃষকদের বিনামূল্যে ধান কেটে দেওয়ার যাত্রা শুরু করে।

হোসেন মারুফ এর নেতৃত্বে প্রায় ২০০ যুবক ধান কাটায় অংশগ্রহণ করেন। এ দলটি এ পর্যন্ত ২৫ বিঘা দান কেটেছেন সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা ৫০ বিঘা ধান কাটার টার্গেট দিয়েছেন। দলটি বিভিন্ন ইউনিটে বিভক্ত হয়ে ধান কেটে দিচ্ছেন অসহায় দরিদ্র কৃষকদের।

হোসেন মারুফ এর সাথে যুক্ত হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সম্মানিত সভাপতি ও দেশ বরেন্য গবেষক প্রফেসর আব্দুলাহ আল মামুন। তিনি এ-র আগে সেচ্ছাশ্রমে ধান কেটে দেওয়া কর্মসূচি উদ্ভোদন করেন এবং তিনি নিজেও কাস্তে হাতে নিয়ে ধান কাটেন।

ধান কাটা নিয়ে হতাশাগ্রস্ত কৃষকের মাঝে উপস্তিত তরুন যুবকেরা সবাই হোসাইন মারুফ ক্রীড়াচক্রের সদস্য। উক্ত ধান কাটা কর্মসূচিতে উপস্তিত ছিলেন হোসাইন মারুফ ক্রীড়াচক্রের সন্মানিত সভাপতি ও আশেপাশে গ্রামের মুরুব্বি ও তরুন সমাজ। হোসাইন মারুফ ক্রীড়া চক্রের সন্মানিত সভাপতি “শেরপুর টুডে ডটকম”কে জানায় তাদের সংঘঠন হোসাইন মারুফ ক্রীড়াচক্র বাংলার মানুষের সকল বিপদে আপদে সব সময় পাশে থাকতে প্রস্তুত। হোসাইন মারুফ আরও বলেন “কৃষক বাঁচাও, দেশ বাঁচাও” এই স্লোগানকে সামনে রেখে সেচ্ছায় ধান কাটা কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *