নকলার চন্দ্রকোনায় তৃতীয় শেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের ফলে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, ধর্ষক আটক

শেরপুরের নকলার চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের বালিয়াদী এলাকায় তৃতীয় শেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ফলে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় গতকাল সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীর দাদা মোক্তার হোসেন বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ রাতেই আসামী রানাকে গ্রেফতার করে। ধর্ষিতা ছাত্রী ওই এলাকার জিয়ারুল হকের মেয়ে। সে বালিয়াদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী।

অভিযোগে জানা যায়, বালিয়াদী এলাকার চাঁন মিয়ার পুত্র আতিকুর রহমান রানা একই এলাকার ওই ছাত্রীকে লোভ দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ফলে সে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পরে।

পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ধর্ষিতার দাদা মোক্তার হোসেন গতকাল সন্ধ্যায় বাদী হয়ে নকলা থানায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ রাতেই ধর্ষক আতিকুর রহমান রানাকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করেন। এদিকে ধর্ষিতা ওই ছাত্রীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার দাদা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় নকলা থানায় মামলা রুজু করে রাতেই ধর্ষক রানাকে আমরা গ্রেফতার করি। পরে আজ সকালে ধর্ষক রানাকে সদর কোর্টে প্রেরন করি এবং ধর্ষিতাকে শেরপুর সদর হাসপাতালে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করি। বলছিলেন, নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহনেওয়াজ।

এ নিয়ে বালিয়াদী এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃস্টি হয়ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *