আমাদের একটাই কথা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবই: ফখরুল ইসলাম

শেরপুর টুডে ডেস্ক: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের একটাই কথা আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবই। আর সরকারকে বাধ্য করবো খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে জনগণের সমস্ত অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য। এই হচ্ছে এখন আমাদের একমাত্র কাজ।

শনিবার ‘ক্ষমতাসীনদের প্রতিহিংসার নির্মম শিকার বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি’ শীর্ষক এক সমাবেশে এ কথা জানান তিনি।

‘বিএনপির উদ্যোগে রাজধানীর নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সামনে ট্রাকের উপর অস্থায়ী মঞ্চ তৈরী এ সমাবেশ অনষ্ঠিত হয়।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা অনেক কথা বলেছি। অনেক সভা করেছি। অনেক দাবি জানিয়েছি। নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। এখন আমাদের একটাই কথা আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবই। আর সরকারকে বাধ্য করবো দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে জনগণের সমস্ত অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য। এই হচ্ছে এখন আমাদের একমাত্র কাজ।

‘আপনারা সবাই জানেন, সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে শুধু তাকে (খালেদা) আটক করে রাখা হয়েছে। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। এতো অসুস্থ যে, তিনি এখন ঠিক মতো হাটতে পারেন না। তাকে সাহায্য করে চলাতে হয়।’

দুই বছর সম্পূর্ণ বিনা কারণে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় তাকে আটক করে রাখা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল।

সিটি নির্বাচন প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, যতই যন্ত্র দিয়ে বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হোক এদেশের জনগণ সেটা করতে দেবে না। আর মাত্র ১৫ শতাংশ ভোট নিয়ে মেয়র হওয়া যায়। কিন্তু জনগণের প্রতিনিধি হওয়া যায় না। তাই নির্বাচনের ফলাফলকে বাতিল করে দাও। পুনরায় জনগণের ভোটে মেয়র নির্বাচিত করতে হবে। সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আজকে আমাদের কথা পরিস্কার, আপনারা ব্যর্থ হয়েছেন, এদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন, অধিকার হরণ করেছেন এবং গণতন্ত্রকে কেড়ে নিয়েছেন। তাই অবিলম্বে পদত্যাগ করুন এবং নিরপেক্ষ সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। না হলে জনগণের উত্তাল তরঙ্গের মধ্যে আপনারা ভেসে যাবেন।

এসময় সমাবেশ থেকে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামী শনিবার সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেন ফখরুল। গণঅভ্যুত্থানের মধ্যে দিয়ে এই ভয়াবহ দানবকে পরাজিত করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অর্থনীতির অবস্থা ভালো না, খারাপ- অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমার তো মনে হচ্ছে, এখন তার চাকরি থাকে কি না? এই কথা বলার পরে তার চাকরি থাকার তো কথা না।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা বুঝতে পারছি, রাজনৈতিক কারণে বেগম জিয়া মুক্তি। তাই আজকে বেগম খালেদা জিয়ার ও সরকার পতনের আন্দোলন এক সাথে করতে হবে।

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন আমাদের মেয়র তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেন। ইভিএমে ভোটে নির্বাচিতরা জনগণের মেয়র নয়। কারণ জনগণ ইভিএম প্রত্যাখান করেছেন। ইভিএমের উপরে জনগণ সম্পূর্ণ অনাস্থা প্রকাশ করেছেন। সুতরাং এই সরকার ভোট চুরি করেছে। এই সরকার ভোট চোর।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, লজ্জা করে বলতে হচ্চে যে, আমি বাংলাদেশের নাগরিক। বাইরে (বিদেশে) যখন আলোচনা হয় তখন তারা বলে, তোমার দেশে কি আইনের শাসন নাই। জামিন পাবে না কেনো? যখন তাদের বলি, রাজনৈতিক কারণে জামিন পায় না। এরপরও আইনী প্রক্রিয়া চালিয়ে যেতে হবে। কিন্তু রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমেই বেগম জিয়া মুক্তি পাবেন। আর খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি দেয়া হবে।

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারের উচিত আবার পুনঃনির্বাচন দেয়া। নির্বাচন কমিশনের উচিত হবে, এই নির্বাচন বাতিল করে নতুন নির্বাচন দেয়া। আর নির্বাচনে ভোটাদের ভোট প্রয়োগ উচিত করতে হবে।

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আমাদেরকে আজকে অনেকে বলেন, বিএনপি আন্দোলন করছে না বা করতে পারে না। কিন্তু আজকের সভা কি আন্দোলনের অংশ না? আমরা মিছিল ও মিটিং করি, লোক হয়। তবে আমাদের যার যার এলাকার কোন্দল আছে তা ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সুতরাং নিজেদের ভিতরের কোন্দল আগে মিটাতে হবে। তাহলেই বেগম জিয়া মুক্ত হবেন। সেভাবে আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে।

দলটির আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা যারা বিএনপি নেতা। তারা আজ লজ্জিত অবস্থায় আপনাদের সামনে দণ্ডায়মান। কারণ যাকে আমরা ‘মা’ ভেবেছি। তিনি আজ দুই বছর ধরে কারাগারে। কিন্তু আমারা এতো হাজার হাজার নেতাকর্মীরা আছি, এরপরও আমরা তাকে মুক্ত করতে পারি নাই। কিন্তু এখনো হত্যা, গুম ও মামলা হচ্ছে। আর এখন যদি আন্দোলন করি এর চেয়ে কি বেশী কিছু হবে? তাই আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে, হয় তাকে আইনী না হয় লড়াইয়ে তাকে মুক্ত করবো। আর তা না হলে আমরা সবাই মায়ের কাছে চলে যাবো।

দুপুর ২টায় খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এই সমাবেশ শুরু হয়। এরআগে দুপুর ১২টা থেকে বিএনপি এবং এর অঙ্গসহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে খণ্ড খন্ড মিছিল নিয়ে সমাবেশে সমাবেত হতে দেখা গেছে। এসময় সমাবেশ থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মীরা বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগানে নয়াপল্টন মুখরিত করে তোলেন।

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপি নেতা ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, বরকত উল্লাহ বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায় চৌধুরী, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, আব্দুস সালাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, তাবিথ আউয়াল, ইশরাক হোসেন প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

Sherpur Today

Sherpur Today (sherpurtoday.com) is a Bangla 24 hours online news portal in Bangladesh. Started publishing in 26 March 2019 under editorship of Md. Mazharul Islam

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *