ভূরুঙ্গামারীতে সরিষার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

মোঃ মনিরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় এবার সরিষার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। দুটি ফসলের মাঝে কৃষকরা সরিষা চাষের ফলনকে বোনাস হিসেবে দেখছেন। একসময় কৃষকরা আমন ধান কাটার পর জমি পতিত ফেলে রাখতো। সময়ের সাথে সাথে তা পুরোটাই পাল্টে গেছে। আমন ধান কাটার পর জমিতে সরিষা লাগাতে হয়। যা মাত্র ৬০ থেকে ৭০ দিনের মধ্যে ফসল কৃষক ঘরে তুলতে পারেন।

দিগন্ত জোড়া ফসলের মাঠে সরিষা ফুলের সমারোহ শেষে ফলনের ভারে সরিষা গাছ এখন নুয়ে পরেছে। উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে। একাধিক কৃষকের সাথে কথা বলে জানা গেছে সরিষা চাষ খুবিই লাভজনক একটা আবাদ। অতি অল্প সময়ে, অল্প পুজিতে কৃষকরা লাভবান হন তাই অধিকাংশ কৃষক এখন সরিষা চাষের দিকে ঝুকছেন।

এক বিঘা (৩৩শতাংশ) জমিতে সরিষা আবাদ করতে খরচ হয় দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা। যদি সঠিক ভাবে পরিচর্চা করা যায় তাহলে প্রতি বিঘায় ফলন হয় ৬ থেকে ৭ মণ সরিষা।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের নলেয়া গ্রামের কৃষক শহিদুল ইসলাম জানান, আমন ধান কাটার পর দুই বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করেছি। ফলনও বেশ ভাল হয়েছে। এই সরিষা বিক্রি করে বোরো আবাদের তেল ও সার কেনার টাকা জোগাড় হয়ে যাবে।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানাগেছে, এবছর ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ১৯৭৫ জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অর্জিত হয়েছে ১৯৭০ হেক্টর। যা গত বছর একি সময়ে ছিল ১৭৯০ হেক্টর।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, সরিষা মূলত একটি মসলা জাতীয় ফসল। ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় এবার সরিষার বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে কৃষককে অধিক ফলন পেতে নানা ভাবে প্রশিক্ষন দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তাগণ সার্বক্ষনিক মাঠে কৃষকের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। যাতে কৃষকের কোন সমস্যার সৃষ্টি না হয়। আশা করছি প্রাকৃতিক কোন বিপর্যয় না ঘটলে এবার সরিষার ফলন নির্ধারিত লক্ষ্য মাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

Sherpur Today

Sherpur Today (sherpurtoday.com) is a Bangla 24 hours online news portal in Bangladesh. Started publishing in 26 March 2019 under editorship of Md. Mazharul Islam

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *