জামিয়ায় বিক্ষোভকারীদের ওপর উগ্র হিন্দুত্ববাদির গুলি; ভারতীয় রাজনীতিকদের ক্ষোভ

শেরপুর টুডে ডেস্ক: দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে ‘সিএএ’ বিরোধী মিছিলে গুলিবর্ষণের ঘটনাকে ‘বিদ্বেষের বহিঃপ্রকাশ’ বলে অভিহিত করেছে কংগ্রেস। দলটির মুখপাত্র মনীশ তিওয়ারি বলেছেন, ‘জামিয়াতে যা ঘটেছে তা বিদ্বেষের পরিবেশের বহিঃপ্রকাশ। প্রকাশ্য দিবালোক ও শতশত লোকের সামনে গুলিবর্ষণের ঘটনায় এটাই স্পষ্ট যে পরিবেশ বিষাক্ত হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘যে বিদ্বেষ মহাত্মা গান্ধীকে হত্যা করেছিল, সেই বিদ্বেষ এখন ভারতে ক্ষমতাসীন। জাতীয় রাজধানীতে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে এই সত্যটি প্রমাণ করে। পরিকল্পিতভাবে সেই পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে যার বিরুদ্ধে লড়তে লড়তে মহাত্মা গান্ধী প্রাণ দিয়েছিলেন।’

কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেছেন, ‘বিজেপি’র নেতা-মন্ত্রী যদি লোকেদেরকে গুলি মারার জন্য উসকানি দেয়, উত্তেজক ভাষণ দেয় তাহলে এসব সম্ভব। প্রধানমন্ত্রীকে জবাব দিতে হবে তিনি কেমন দিল্লি তৈরি করতে চান? তিনি সহিংসতার পাশে, না অহিংসার পাশে দাঁড়িয়েছেন? তিনি উন্নয়নের সঙ্গে আছেন, না অরাজকতার সঙ্গে আছেন?’

সম্প্রতি দিল্লির শাহীন বাগের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী আন্দোলনকে টার্গেট করে বিজেপি এমপি ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর বলেছিলেন, ‘দেশের বিশ্বাসঘাতকদের গুলি করে মারা উচিত।’

অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে লিখেছেন, ‘গতমাসে জামিয়ায় গিয়ে তো বেশ সাহস দেখিয়েছিলেন, আজ কী হল? নীরব দর্শক হওয়ার জন্য যদি কোনও পুরস্কার থাকত, তাহলে প্রতিবার আপনারাই তা জিততেন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ওই পড়ুয়াকে ব্যারিকেড টপকাতে হল কেন, এর কোনও জবাব কী আপনাদের কাছে আছে? কর্তব্য পালন করতে গিয়ে কী মনুষ্যত্ব হারিয়েছেন আপনারা?’

ওয়াইসি আরও বলেন, এই ঘটনা এমন সময়ে ঘটল যখন আমরা মহাত্মা গান্ধীর খুনি গডসেকে স্মরণ করছি। শিক্ষার্থীরা যখন এটি নিয়ে একটি মিছিল করতে যাচ্ছিল। এই ধরনের কাপুরুষোচিত হামলা চালিয়ে আমাদের ভয় দেখানো যাবে না। আন্দোলন চলবে। এটা এখন গডসে বনাম গান্ধী, আম্বেদকর এবং নেহেরুর ভারত হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে কোনও একটি পক্ষ বেছে নিতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করে ওয়াইসি বলেন, ‘এবার পোশাক দেখে হামলাকারীকে চিহ্নিত করতে পেরেছেন তো!’

বৃহস্পতিবার মহাত্মা গান্ধীর ৭২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে ‘সিএএ’ বিরোধী মিছিল নিয়ে রাজঘাটের দিকে এগোচ্ছিল জামিয়া’র ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ মানুষজন। এ জন্য আগে থেকেই ওই এলাকায় বিশাল পুলিশ মোতায়েন ছিল। মিছিল আটকাতে হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের সামনে বসানো হয়েছিল ব্যারিকেডও। এগোতে না পেরে ব্যারিকেডের সামনেই রাস্তায় বসে পড়েন আন্দোলনকারীরা। সেইসময়ই তাঁদের ওপরে পিস্তল নিয়ে হামলা চালায় গোপাল নামের এক উগ্র হিন্দুত্ববাদী যুবক। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, পিস্তল উঁচিয়ে আন্দোলনকারীদের শাসিয়ে ওই হামলাকারী যুবক বলে, ‘কিসকো আজাদি চাহিয়ে? ম্যায় দুঙ্গা আজাদি। ইয়ে লো আজাদি।’ তারপরেই আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে দিকে গুলিবর্ষণ করলে শাদাব ফারুক নামে জামিয়ার এক ছাত্র গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। রক্তাক্ত আহত ওই ছাত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে বিপদমুক্ত।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, ওর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুলিশকে। এ ধরণের ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না।

উতসক্স, পার্সটুডে

Md Shaikot

Shaikotuzzaman News Editor: sherpurtoday.com [Sherpur Today (sherpurtoday.com) is a Bangla 24 hours online news portal in Bangladesh. Started publishing in 26 March 2019 under editorship of Md. Mazharul Islam]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *