ভূরুঙ্গামারীতে গত ২৪ ঘন্টায় ৪ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত,আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ চিকিৎসকের

মোঃমনিরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম সংবাদদাতাঃ কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে গত ২৪ ঘন্টায় ৪ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত হওয়ার খবর পাওয়াগেছে। জানাগেছে, গত ৯ আগস্ট (শুক্রবার) দুপুরে কচাকাটা(পুলিশ ষ্টেশন) এলাকার বেলাল হোসেন (১৭) নামের একজন রোগী প্রচন্ড জ্বর ,বমি ও পেটে ব্যথা নিয়ে ভূরুঙ্গামারীর মাদার ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে আসে । রোগীর বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে ক্লিনিকের কর্তব্যরত চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম রিপন বেলালের শরীরে ডেঙ্গু ভাইরাসের উপস্থিতির নিশ্চিত হন। অবস্থার অবনতির আশঙ্কায় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বেলালকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বেলালের পরিবার সূত্রে জানাগেছে , সে ঢাকায় রাজ মিস্ত্রীর কাজ করত । শরীরে জ্বর নিয়ে গত এক সপ্তাহ আগে বাড়ীতে আসে। অপর দিকে ঐ দিন সন্ধ্যায় উপজেলার দেওয়ানের খামার গ্রামের লাভলী(২৫) নামের আরেকজন রোগী প্রচন্ড জ্বর ও বমি নিয়ে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ  চিকিৎসা নিতে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করা রোগীর বিভিন্ন পরীক্ষার কাগজ পত্র দেখে রংপুরেই ডেঙ্গু ধরা পড়েছে বলে নিশ্চিত হন । তাই শুক্রবার রাত ১টায় লাভলীকে পুনরায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এদিকে শনিবার বিকেলে উপজেলার কাশেম বাজার এলাকার রিমন(২২) ও সোনাহাট এলাকার সুমন(২০) নামে দুজন রোগী শরীরে জ্বর নিয়ে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসা নিতে আসলে পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে তাদের উভয়ের শরীরে ডেঙ্গু ভাইরাস শনাক্ত কারাহয়। তারা দুজনই ঢাকা থেকে ঈদের ছুটিতে বাড়ীতে এসেছে। ঢাকা থেকে ডেঙ্গু ভাইরাস নিয়ে ঈদের ছুটিতে নিজ বাড়ীতে আসা কিছু মানুষের দ্বারা এই এলাকায় ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে এলাকাবালীর আশঙ্কা করছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবু সাজ্জাদ মোঃ সায়েম বলেন- এ পর্যন্ত আমরা ভূরুঙ্গামারীতে ৪ জন ডেঙ্গু রোগীর সন্ধান পেয়েছি। যার এক জন রংপুরে ও বাকী তিন জন ঢাকায় ডেঙ্গু ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তবে ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই ।বরং সচেতন থাকতে হবে। জনগনের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বাড়ীর আঙ্গিনা ও চার পাশের ঝোপঝাড় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। সকলের সম্মলিত প্রচেষ্টায় ডেঙ্গু মোকাবেলার সব চাইতে সহজ উপায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *