এজেএম আহছানুজ্জামান ফিরোজ, শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি: শেরপুরের শ্রীবরদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার সিংগাবরুনা ইউনিয়নের ঝোলগাঁও গ্রামে। আহতরা হলেন ঝোলগাঁও গ্রামের সাদা মিয়ার স্ত্রী খাদিজা-(২৫), রোকন মিয়ার স্ত্রী পাসিমা (২২), উসমান গণির স্ত্রী মঞ্জু রানী (২৫), আবুল কাশেমের মেয়ে মিম (১২), আবু সাঈদের মেয়ে হনুফা (২২), আবুল কাশেমের স্ত্রী ছায়েদা (৫০)। আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এলাকাবাসি ও আহতদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ছবর শেখ ১৯৬২ সালে ভারত থেকে পরিবারের ৬ জন সদস্য নিয়ে বাংলাদেশে (তৎকালীন পুর্ব পাকিস্তান) আসেন এবং রিফিউজি হিসাবে বসবাস করতে থাকেন। সে সময়ে পাকিস্তান সরকার মাথাপিছু ৫০ শতাংশ করে মোট ৩ একর জমির বন্দোবস্ত দেন। এছাড়া সংসার করার জন্য ঘরবাড়িসহ যাবতীয় ব্যবস্থা করে দেন। ছবর শেখ মৃত্যুর পর ওই গ্রামের ছামিউল হাজী ১ একর ৭৫ শতাংশ জমি জবর দখল করে ভোগ করতে থাকে। ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ছামিউল হাজীর লোকজন বোরো ধানের চারা ওই জমিতে রোপন করতে যায়। এসময় আবুল কাশেমের লোকজন বাঁধা দিতে গেলে ছামিউল হাজীর নেতৃত্বে সালু মিয়ার হুকুমে দুলু, ফরিদ, কুদ্দস, আলমগীর ও হারিছসহ ৩০/৪০ জন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে বেধড়ক মারপিট করে গুরুতর আহত করে। এসময় আশপাশের লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
এব্যপারে পুলিশ উপ-পরিদর্শক মোফাক্ষির উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছি এবং মারপিটের ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *